নবীকে নিয়ে আপত্তি জনক পোস্ট কংগ্রেস বিধায়কের ভাগ্নের! ঘেরাও বাড়ি, পুলিশের গুলিতে নিহত ২ মুসলিম যুবক

503

পিপিএন বাংলা, নিউজ ডেস্ক: মঙ্গলবার ১১ ই আগস্ট গভীর রাতে বিজেপি শাসিত কর্ণাটকের রাজধানী বেঙ্গালুরুতে সাম্প্রদায়িক হিংসা শুরু হয়। প্রকৃতপক্ষে, এক যুবক নবী মোহাম্মদ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম কে আপত্তিজনক মন্তব্য করে বলে অভিযোগ। ঐ অভিযুক্ত যুবক বেঙ্গালুরুর পুলকেশী নগর বিধানসভা আসনের কংগ্রেস বিধায়ক আখন্দ শ্রীনিবাস মুর্তির ভাগ্নে। এর প্রতিবাদে সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের প্রায় শতাধিক মানুষ কংগ্রেস বিধায়ক আখন্দ শ্রীনিবাস মুর্তির বাড়ি ঘেরাও করে বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করে। শুধু তাই নয় তার বাড়িতে বিক্ষোভকারীরা পাথর ছুড়েছে বলে অভিযোগ করেন কংগ্রেস বিধায়ক মূর্তি।

এএনআই-এর খবরে বলা হয়েছে, কংগ্রেস বিধায়ক মুর্তির ভাগ্নে নবীকে নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় একটি পোস্ট করেছিলেন, এর পরে সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের লোক ক্ষোভে ফেটে যায় এবং বিধায়কের বাড়িতে ভাংচুর করেন। এ বিষয়ে কর্ণাটকের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেছিলেন, “বিষয়টি তদন্তাধীন, তবে ভাঙচুর কোনও সমস্যার সমাধান করতে পারে না। সুরক্ষার পরিপ্রেক্ষিতে ওই এলাকায় অতিরিক্ত বাহিনী মোতায়েন করা হয়েছে এবং দুর্বৃত্তদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।”

সংবাদ সূত্রে খবর, পুলিশ বিক্ষোভকারীদের ছত্রভঙ্গ করতে কয়েক রাউন্ড গুলি ফায়ারিং করে। দুজনের মৃত্যু হয়েছে বলে জানা গেছে। যদিও পুলিশ তাদের ফায়ারিং এ মৃত্যু হয়েছে বলে অভিযোগ করা হচ্ছে তা অস্বীকার করেন। পুলিশের তরফ থেকে সংবাদ মাধ্যমকে জানানো হয়- বিক্ষোভকারীদের ছোড়া পাথরে ৬০ জনেরও অধিক পুলিশকর্মী আক্রান্ত হয়েছেন।

বেঙ্গালুরু পুলিশ কমিশনার কমল পান্ত ঘটনাস্থলের উদেশ্যে রওনা দিয়েছেন। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বাসভরাজ বোমাই গণমাধ্যমকে বলেছেন “আইন নিজের হাতে নেওয়ার অধিকার কারও নেই। এর সাথে তিনি বলেছিলেন যে পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে এবং পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে অতিরিক্ত বাহিনী মোতায়েনের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। ” সুরক্ষার জন্য বিধায়ক মুর্তিকে থানায় রাখা হয়েছে এবং এ কারণে ঘটনার বিষয়ে তার প্রতিক্রিয়া নেওয়া যায়নি।

Comment

Please enter your comment!
Please enter your name here