“জীবন্ত জাহান্নামে রয়েছি”! জেল থেকে বেদনাদায়ক চিঠি ডঃ কাফিল খানের

56

পিপিএন বাংলা, নিউজ ডেস্ক: আমি জানি না কেন আমাকে শাস্তি পেতে হচ্ছে৷ আমি জানি না কখন আমার স্ত্রী, মা, ভাই, বোন সন্তানদের দেখতে পাব৷ খোলা চিঠিতে এভাবেই আক্ষেপ করেছেন যোগী সরকারের আক্রোশের শিকার হয়ে উত্তর প্রদেশের মথুরা জেলে থাকা ডাক্তার কাফিল খান। গোরক্ষপুরে শিশুমৃত্যুর সময় বহু শিশুর প্রাণরক্ষা করে শিরোনামে এসেছিলেন এই সাহসী ডাক্তার৷ কিন্তু একজন সংখ্যালঘুর ‛বাড়বাড়ন্ত’ সহ্য হয়নি যোগী আদিত্যনাথের বিজেপি শিবিরের৷ তাই মিথ্যা মামলায় ফাঁসিয়ে বারবার তাকে অপদস্থ করার প্রক্রিয়া অব্যাহত৷

সিএএ বিরোধী অবস্থান নেওয়ার জন্য জাতীয় নিরাপত্তা আইনে তাকে বন্দি করা হয়েছে৷ জেল থেকেই তিনি মর্মস্পর্শী খোলা চিঠি লিখে নিজের মনোভাব ব্যক্ত করেছেন৷ জেলে তাকে খুবই অত্যাচার করা হচ্ছে৷ জেলের ভেতরের অবস্থাকে নরকের সঙ্গে তুলনা করেছেন তিনি৷

জেলের ভেতরের অবস্থা বর্ণনা করতে গিয়ে তিনি লিখেছেন, সেখানকার অবস্থা খুবই খারাপ, অস্বাস্থ্যকর, দমবন্ধ হয়ে যায়৷ যে জেলে ৫০০ জন থাকা যায়, সেখানে রাখা হয়েছে ১৬০০ জনকে৷ ফলে আরও অস্বাস্থ্যকর পরিবেশ তৈরি হয়েছে৷ একটি টয়লেট ব্যবহার করছে ১২৫-১৫০ জন৷ প্রস্রাব ও ঘামের দুর্গন্ধ এবং বিদ্যুৎ না থাকলে গরমের ফলে অসহ্য হয়ে উঠেছে জীবন৷ এক জীবন্ত নরক৷ কয়েক ঘণ্টা লাইনে দাঁড়িয়ে থাকার পর টয়লেটে ঢোকার পর আসে ঝাঁক ঝাঁক মশা, মাছি৷ এই পরিস্থিতি তার মতো ডাক্তারকে কখনও পড়তে হয়নি৷ ফলে তিনি সহ্য করতে না পেরে বমি করেও ফেলেন৷

কাফিল খানের খোলা চিঠি থেকে জানা যাচ্ছে, জেলে তাকে যে খাবার দেওয়া হয় তা খাওয়ার যোগ্য নয়৷ তাকে দেখতে আসা লোকজনদের দেওয়া ফল খেয়েই তার দিন কাটত৷ তবে লকডাউন শুরু হবার পর থেকে সেটাও বন্ধ হয়ে গেছে৷

Comment

Please enter your comment!
Please enter your name here