“এই দাঙ্গায় কার সমর্থন রয়েছে? দায়ী কে? অমিত শাহ্ কী দাঙ্গাবাজদের সমর্থন করে?”: আল্কা লাম্বা

পিপিএন বাংলা, নিউজ ডেস্ক: দেশের রাজধানী দিল্লি অগ্নিগর্ভ হয়ে গেছে! বলা যেতে পারে অগ্নিগর্ভ করা হয়েছে। হেড পুলিশ কনস্টেবল রতন লাল কর্মরত অবস্থায় দাঙ্গাবাজদের হাতে মারে জীবন যুদ্ধে পরাজিত হয়েছেন। ডিএসপি অমিত শার্মা গুরুতরভাবে আহত হয়েছেন।

দিল্লির রাজপথে উর্দি ধারীদের সামনেই গেরুয়া সন্ত্রাসীরা CAA বিরোধী আন্দোলনকারীদের লক্ষ্য করে পাথর ছুড়ে। এমনকি দেশের সবচেয়ে মজবুত স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর পুলিশের সামনেই বন্দুক উঁচিয়ে ফায়ারিং করতে থাকে। পেট্রল পাম্প সহ একাধিক বাড়ি-ঘর ও গাড়িতে অগ্নিসংযোগ করে দাঙ্গাবাজরা। তবে এখন পর্যন্ত দায়ীদের বিরুদ্ধে পদক্ষেপ নেওয়া হয়নি।

এই হিংসার জন্য কংগ্রেস নেত্রী আলকা লাম্বা বিজেপি নেতা কাপিল মিশ্রেকে দায়ী করেছেন। তিনি টুইট বলেন – ‘গতকাল কাপিল মিশ্র দিল্লি পুলিশকে বলেছিলেন আমরিকা প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের দেশ থেকে যাওয়া পর্যন্ত অপেক্ষা করবেন … এবং আজকে কোনও সতর্কতা ছাড়াই তিনি দিল্লিতে দাঙ্গা লাগিয়ে দিল …. এই দাঙ্গায় কার সমর্থন রয়েছে ?? নাকি উভয়ের দাঙ্গায় সমর্থন রয়েছে ?

উল্লেখ্য যে, বিজেপি নেতা কপিল মিশ্র গতকাল দিল্লিতে পুলিশের সামনেই হুমকির সুরে বলেন, যদি নাগরিকত্ব সংশোধন আইনের বিরোধী অবস্থান-বিক্ষোভ বন্ধ না হয়। তবে কাপিল মিশ্র তার কর্মী-সমর্থকদের সাথে রাস্তায় নেমে প্রতিবাদ দমন করবে।

তার বিবৃতির প্রভাব আজকে পরিষ্কারভাবে দিল্লির রাজপথে দেখা গেল। আজ দাঙ্গাবাজরা পাথর ও বন্দুক হাতে নিয়ে দিল্লির রাজপথে নেমে আসে। সাংবাদিক বিনোদ কাপড়ি টুইট করে এর প্রতিবাদ করেন। এমনকি তিনি টুইট করে প্রধানমন্ত্রীর নরেন্দ্র মোদী ও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর অমিত সাহকে একহাত নেন। তিনি টুইট করে বলেন – “দেশের রাজধানী দিল্লি জ্বলছে। কাপিল মিশ্রের মত সন্ত্রাসীরা এখনও জেলের বাইরে রয়েছে। দাঙ্গাবাজরা বুক ফুলিয়ে রাজপথে ঘুরে বেড়াচ্ছে। আর দেশের প্রধানমন্ত্রী – স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর কাছে কোন খবর নেই।”

Comment

Please enter your comment!
Please enter your name here