ফের বেফাঁস দিলীপ ‘বাঙালি মানেই চোর, চিটিংবাজ’! বাঙালি জাতিকে অপমান ঘোষে এর

পিপিএন বাংলা, নিউজ ডেস্ক: অনেকটা ফাটাকেষ্ট ফিল্ম এর ডায়লগ এর মতই হয়ে গেছে বিজেপি রাজ্য থেকে কেন্দ্র স্তরের নেতারা। হোক সে কেন্দ্রীয় মন্ত্রী, রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী, বা সাংগঠনিক নেতা যেন বিতর্ক পিছু ছাড়ছে না তাদের। যেমন ফাটাকেষ্ট মিঠুন বলেছিল, ফাটা কেষ্ট খবর দেখে না, খবর শুনে না, খবর তৈরি করে। সেই মতই বিজেপি নেতারা মুখ খুললেই যেন বিতর্ক সৃষ্টি করে।

গতকাল বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ নিজের বক্তব্যের মাঝেই তুলে এনেছিলেন কাটমানি ইস্যু । আক্রমণের লক্ষ্য ছিল শাসক তৃণমূল কংগ্রেস । কথায় কথায় বাঙালি জাতিকেই অপমান করে বসলেন রাজ্য BJP সভাপতি দিলীপ ঘোষ । বললেন, “বাঙালি মানেই চোর-চিটিংবাজ হয়ে গেছে ।” যা নিয়ে সুর চড়িয়েছে তৃণমূল । কটাক্ষের সুরে জেলা তৃণমূল নেতাদের প্রশ্ন, “তাহলে কি দিলীপবাবু বাঙালি নন ? উনিও তো তাহলে চোর-চিটিংবাজ।”

গতকাল জনসংযোগ কর্মসূচিতে হুগলির কামারপুকুরে যান দিলীপ । বিকেল চারটে নাগাদ সোদপুর থেকে পুরশুড়া পর্যন্ত পদযাত্রা করেন । পরে পুরশুড়ায় একটি জনসভাও করেন । সেখানে মুখ্যমন্ত্রীকে আক্রমণ করে দিলীপবাবু বলেন, “দিদিমণি কত দিন ভোট আটকাবেন ? কেউ যদি মনে করেন, ভোট না করে ক্ষমতা ভোগ করবেন তাঁর কপালে দুঃখ আছে ৷ দিদিমণি ভেবেছেন বোধহয় গতবার পঞ্চায়েত, মিউনিসিপ্যালিটি ভোটের মতো গুন্ডা আর পুলিশ দিয়ে জিতে নেবেন৷ আসলে দিদিমণি আপনার দিন শেষ ৷ আপনাকে আর কষ্ট করে 14 তলায় উঠে নবান্নতে বসতে হবে না ৷ আপনার জায়গা কালীঘাট ৷ ওখানে চলে যান ৷ শান্তিতে থাকুন ৷ বাংলার মানুষ বিকল্প খুঁজে নিয়েছে ৷”

তিনি আরও বলেন, “আমাদের উপর 28 হাজার কেস চলছে ৷ কেস দিয়েছে দিদিমণির পুলিশ ৷ আমার নামে 22টা কেস দিয়েছে ৷ আমি নাকি মার্ডার করতে যাচ্ছি ৷ এখনও তো মার্ডার করিনি ৷ যদি আমরা শুরু করি তাহলে কিন্তু খুঁজে পাবেন না ৷ অফিসের দরজা খোলার লোক পাবেন না ৷ পুলিশ অফিসারদের ধমকানো হচ্ছে যাতে কেস না তুলে নেওয়া হয় ৷ আপনি কত কেস দিতে পারেন আমরাও দেখছি ৷”

Comment

Please enter your comment!
Please enter your name here