ভোট দেবেন না নির্ভয়ার বাবা-মা,৭বছর ধরে দোষীদের শাস্তির প্রতিশ্রুতির নামে রাজনীতি হচ্ছে

ভোট দেবেন না নির্ভয়ার বাবা-মা,৭-বছর ধরে দোষীদের শাস্তির প্রতিশ্রুতির নামে রাজনীতি হচ্ছে
ভোট দেবেন না নির্ভয়ার বাবা-মা,৭-বছর ধরে দোষীদের শাস্তির প্রতিশ্রুতির নামে রাজনীতি হচ্ছে

পিপিএন বাংলা, নিউজ ডেস্ক: সব দেশেই শিশুদের সুরক্ষিত থাকার কথা৷ কিন্তু ইদানীং ভারতে মেয়েদের জন্য তেমন পরিবেশ নেই৷ তারা আতঙ্কিত৷ বলতে গেলে সারা দেশেই নারী তো বটেই, শিশুদের সঙ্গেও ঘটে চলেছে ন্যক্কারজনক যৌন নিপীড়নের ঘটনা৷ দেশজুড়ে একের পর এক ধর্ষণের ঘটনা নিয়ে বিশ্বজুড়ে শোরগোল চলছে৷

বিভিন্ন সংস্থার সমীক্ষায় উঠে আসছে নানা তথ্য৷ একটি হিসেব বলছে, প্রতিদিন গড়ে ১০০টির‌ও বেশি ধর্ষণের ঘটনা নথিভুক্ত হয়৷ বছরে যা ৪০,০০০-‌এর বেশি৷ প্রতি ১০টি ধর্ষণের ঘটনার মধ্যে অন্তত ৪টির শিকার নাবালিকারা৷ প্রত্যেকটি ঘটনার পর সরকার ও পুলিশ, ‌প্রশাসনের পক্ষ থেকে ক‌ঠোর শাস্তির কথা বলা হয়৷ কিন্তু আইনের প্রয়োগ চোখে পড়ে না৷

নির্ভয়া মা-বাবা ভোট দেবেন না । তাঁরা জানিয়েছেন, সুবিচার না পাওয়া অবধি কোনও দলকেই ভোট দেবেন না তাঁরা। তাঁদের উপলব্ধি, শুধুমাত্র ভোট পেতেই রাজনৈতিক দলগুলি নিরন্তর প্রতিশ্রুতি দিয়ে থাকে ৷ কিন্তু ভোট শেষ হলেই সব ভুলে যান তাঁরা। এই কথাটা যেহেতু তাঁরা জীবন দিয়ে বুঝেছেন, তাই তাঁরা আর ভোটের ফাঁদে পা দেবেন না।

২০১২ সালে ১৬ ডিসেম্বর দিল্লিতে চলন্ত বাসের মধ্যে গণধর্ষণের শিকার হন নির্ভয়া। তার পরে চূড়ান্ত শারীরিক নিগ্রহের ফলে, হাসপাতালে লড়াইয়ের পরে প্রাণ হারান তিনি। দেশ জুড়ে প্রতিবাদ বিক্ষোভের আগুন জ্বলে ওঠে। প্রতিটি রাজনৈতিক দলও উঠেপড়ে লাগে, এই ঘটনার বিচার চেয়ে। কিন্তু বাস্তব পরিস্থিতি তেমন জোরদার হয়নি।

নির্ভয়ার মা-বাবাকে সুবিচারের প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল প্রতিটি রাজনৈতিক দলই। কিন্তু অভিযোগ, তা বাস্তবায়িত করার জন্য আদৌ কেউ উদ্যোগ নেয়নি। নির্ভয়ার বাবা-মা এই সাত বছরে বুঝেছেন, নেতাদের সহানুভূতি এবং দোষীদের শাস্তি দেওয়ার প্রতিশ্রুতি আসলে রাজনৈতিক প্রহসন ছাড়া কিছুই নয়। সেই কারণেই সারা দেশে তোলপাড় ফেলে দেওয়া নির্ভয়া ধর্ষণ ও হত্যা মামলায় দোষী সাব্যস্ত হওয়া কোনও অপরাধীর এখনও পর্যন্ত মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করা হয়নি।

জাতি ধর্মের নামে আর কতদিন রাজনীতি করবে বিজেপি: কানাইয়া কুমার

নির্ভয়ার বাবা-মা মনে করেন, শুধু বিচারের অভাবই নয়। তাঁদের সন্তানের এমন মর্মান্তিক পরিণতির পরেও এ দেশে মহিলা ও শিশুদের নিরাপত্তা সুনিশ্চিত করতে ব্যর্থ দেশের প্রশাসন। নির্ভয়ার মায়ের অভিযোগ, রাস্তায় রাস্তায় সিসিটিভি ক্যামেরা এখনও বসেনি। গোটা দেশে এখনও নিরাপত্তার প্রবল অভাব রয়েছে। রোজ কোথাও না কোথাও থেকে খবর আসে গণধর্ষণের। সন্তানরা স্কুল থেকে বাড়ি না ফেরা পর্যন্ত অভিভাবকদের এখনও উদ্বেগের প্রহর গুনতে হয়। এই প্রশাসন কোনও ভোট পাওয়ার যোগ্যই নয় বলে মনে করেন তাঁরা। তাই এবার আর কোনও দলকেই ভোট দেওয়ার ইচ্ছা নেই নির্ভয়ার মা-বাবার। নির্ভয়ার বাবার বক্তব্য, গত সাত বছরে কিছুই বদলায়নি। তাই এই প্রশাসনের প্রতি তিনি সম্পূর্ণ আস্থা হারিয়েছেন৷

Comment

Please enter your comment!
Please enter your name here