রাস্তা নিয়ে বৃদ্ধ বাবা কে মারধর, গুনধর ছোট ছেলের বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ করলেন বাবা

540

মহম্মদ নাজিম আক্তার,চাঁচল,০২ জুলাই: রাস্তা নিয়ে বৃদ্ধ বাবা কে মারধরের অভিযোগ উঠলো গুনধর ছোট ছেলের বিরুদ্ধে।শুক্রবার এমন অমানবিক ঘটনার সাক্ষী থাকলো মালদার চাঁচল থানার অলিহোণ্ডা গ্রাম পঞ্চায়েতের নিশোটোলা।ছোট ছেলের অত্যাচারের হাত থেকে রেহাই পেতে পুলিশের দ্বারস্থ হয়েছেন অসহায় ওই ও ষাট উর্ধ্ব বৃদ্ধ পিতা।আক্রান্ত ওই বৃদ্ধ পিতা এই মর্মে শুক্রবার চাঁচল থানায় ছোট ছেলের বিরুদ্ধে একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন।

অভিযোগ পেয়ে ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে চাঁচল থানার পুলিশ।স্থানীয় ও পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে,অলিহন্ডা গ্রাম পঞ্চায়েতের নিশোটলা গ্রামের বাসিন্দা নজরুল আলী(৬২)।তার দুই ছেলে।শেষ বয়সে এসে নিজের সম্পত্তি দুই ছেলের মধ্যে সমান ভাগে বন্টন করে দিলেও বৃদ্ধের ছোট ছেলে আজিজুল হক আরো সম্পত্তির দাবি জানাতে থাকে।তার দাবি তাকে একটি রাস্তার জন্য জায়গা দিতে হবে। আক্রান্ত বৃদ্ধ সেই দাবি মানতে না চাইলে আজ বৃদ্ধ পিতা নজরুল হক কে গ্রামের মাঠে ব্যাপক মারধর করে তার ছোট ছেলে আজিজুল হক বলে অভিযোগ।

কিল, চর ঘুষি এমনকি বৃদ্ধের বুকে ঘুষি মেরে তাকে বাড়ি থেকে বের করে দেওয়া হয় বলে অভিযোগ।আক্রান্ত বৃদ্ধ প্রথমে চাঁচল সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন থাকলেও প্রাথমিক চিকিৎসার পর তাকে ছেড়ে দেওয়া হয়।এই মর্মে বৃদ্ধ নজরুল হক তার ছোট ছেলে আজিজুল হকের বিরুদ্ধে চাঁচল থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন।আক্রান্ত বৃদ্ধ নজরুল হক অশ্রুভেজা চোখে জানান, শেষ বয়সে এসে ছোট ছেলের হাতে মার খেতে হচ্ছে।

সম্প্রতি, রাস্তার জন্য আমার বাড়িঘর ভেঙে ছোট ছেলেকে রাস্তা করে দিতে হবে এই দাবি না মানায় ছোট ছেলে গ্রামের রাস্তায় নিয়ে গিয়ে আমাকে বেধড়ক মারধর করে। আমি হাসপাতালে চিকিৎসা করিয়ে ছোট ছেলের অত্যাচারের হাত থেকে রেহাই পেতে চাঁচল থানা পুলিশের দ্বারস্থ হয়েছি।বৃদ্ধের আরও অভিযোগ,তার স্ত্রী যখন বেঁচে ছিলেন সেই সময়ে ছোট ছেলে আজিজুল হক তার স্ত্রীর উপর মারধোর করতো বলে অভিযোগ।

এই অসহায় পিতার করুণ আর্তি ছোট ছেলের অত্যাচারে হাত থেকে তিনি যাতে রেহায় পান তার কারণে তিনি চাঁচল থানা পুলিশের দ্বারস্থ হয়েছেন সুবিচারের আশায়।তিনি আশাবাদী পুলিশ সুবিচার পাইয়ে দিবে।তবে ওই বৃদ্ধের দুই ছেলে।স্ত্রী মারা যাওয়ার পর বড়ো ছেলের দিকে থাকছে।

Comment

Please enter your comment!
Please enter your name here