UP পুলিশ দরিদ্রদের উপর নিপীড়ন চালালেও, গুন্ডা-মস্তানদের কাছে অসহায়: স্বাতী মালিওয়াল

পিপিএন বাংলা, নিউজ ডেস্ক: উত্তরপ্রদেশের সিদ্ধার্থনগরে পুলিশের নিরীহ শিশুর সামনে তার বাবাকে মারধরের ঘটনায় দিল্লি মহিলা কমিশনের চেয়ারপার্সন স্বাতী মালিওয়াল প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন। তিনি বলেছিলেন যে,  উত্তরপ্রদেশ পুলিশের যাঁরা গুন্ডা ও দুর্বৃত্তদের উপর জোর খাটাতে পারে না , তারা দরিদ্র-গরীবদেরকে ছাগল-ভেড়ার মতো মারছে।

স্বাতী টুইট করে লিখেছেন, “ইউপি পুলিশ তাদের সমস্ত জোর দরিদ্র ও দুর্বলদের উপরে দেখায় ?” কখনো সেঙ্গার ও চিন্মায়ানন্দের বিরুদ্ধে কিছু সাহস দেখিয়ে দিত ? মাঝ রাস্তায় ছোট বাচ্চার হাত জোড় করার পরেও  তার বাবাকে মারধর করতে থাকে পুলিশ। গুন্ডাদের স্যালুট করে এবং জনগণকে ভেড়া ছাগল মনে করে ! ছি!”

উল্লেখ্য,  ১০ সেপ্টেম্বর মোটর যানবাহন আইন কার্যকর হওয়ার পরে, সাকারপাড়া এলাকায় এক ব্যক্তির মাথায় হেলমেট না থাকায় এবং গাড়ির কাগজপত্র সঙ্গে না থাকার কারণে মাঝ রাস্তায় পুলিশ ও কনস্টেবল ওই ব্যক্তিকে নির্মমভাবে মারধর করে। ঘটনাটির ভিডিও ভাইরাল হয়ে গিয়েছে সোশ্যাল মিডিয়ায়। ভিডিওটিতে দেখা যাচ্ছে যে পুলিশ যখন ওই ব্যক্তিকে নির্মমভাবে মারধর করছিল, তখন তার নিরীহ সন্তান সেখানে উপস্থিত ছিল।

এই ঘটনার ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হলে এসপি অভিযুক্ত দারোগা ও কনস্টেবলকে সাময়িক বরখাস্ত করেন। তাদের বিরুদ্ধে বিভাগীয় তদন্তেরও নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। কিন্তু এই ঘটনায় আশ্চর্যের বিষয় হল এই যে, অভিযুক্ত পুলিশকর্মীদের বিরুদ্ধে এই ঘটনায় কোনও মামলা দায়ের করা হয়নি। এমন পরিস্থিতিতে প্রশ্ন উঠছে যে, এধরনের বর্বরতার ঘটনায় শুধু চাকরি থেকে বরখাস্ত করা-ই কি যথেষ্ট? এই পদক্ষেপটি একদিক থেকে অভিযুক্ত পুলিশ কর্মীদের বাঁচানোর উপায় নয় কী ? এই পদক্ষেপগুলি কি এই ধরনের বর্বরতার ঘটনা রোধে সফল হবে কী?

Comment

Please enter your comment!
Please enter your name here